রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০৭:২৮ পূর্বাহ্ন
add

বিজ্ঞানের সঙ্গে ধর্মের সংঘর্ষের জায়গা নেই

রিপোটারের নাম / ৮৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২২
nagoriknewsbd/photo

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে মুন্সীগঞ্জের বিনোদপুর রামকুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের গণিত ও বিজ্ঞান শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মণ্ডলের কারাগারে যাওয়ার ঘটনা খুবই দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

তিনি বলেন, দেশের এগিয়ে যাওয়ার স্বার্থে একজন শিক্ষককে হয়রানির মধ্যে পড়া উচিত নয়।শনিবার (০৯ এপ্রিল) সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে স্কাউটস দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, এখানে হাজার হাজার বছর ধরে সনাতন ধর্মালম্বীরা ছিলেন, তারপর এখানে ইসলাম এসেছে। এখানে খ্রিস্ট ধর্ম এসেছে, এখানে বৌদ্ধ ধর্ম এসে প্রবেশ করেছে। এখানে নানান ধরনের ধর্ম, চিন্তা, ভাষা এবং সবকিছুর একটা সংমিশ্রণের জায়গা। সেই জায়গায় আমরা গর্বিত। আমাদের ধর্মীয় এবং সম্প্রতির বাংলাদেশ। সেই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা নেতৃত্ব দিচ্ছেন, যখন বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ গতিতে এগিয়ে চলছে তখন আমরা দেখছি চারপাশে অনেক ধরনের অস্থিরতা বিরাজ করছে। প্রতিবেশী অনেক দেশে এখন অনেক ধরনের অস্থিরতা—রাজনৈতিক, সামাজিক নানান অস্থিরতা। সেই পরিস্থিতিতে আমাদের এখানেও হয়তো অনেক অপশক্তি আছে, তারা চায় না আমাদের এই দেশটিতে শান্তি বিরাজ করুক। কারণ শান্তি তো উন্নয়নের পূর্ব শর্ত। কাজেই এখানে শান্তি-সম্প্রীতি অটুট থাকুক, এটা অনকেই চান না। বিশেষ করে যারা সাম্প্রদায়িক অপশক্তি তারা কোনোভাবেই চান না।

কাজেই সব সময় সবকিছুর মাঝে ষড়যন্ত্রের গন্ধ খোঁজার দরকার নাই, কিন্তু কোথাও কোথাও তো ষড়যন্ত্র ঘটে। সাম্প্রতিক যে ঘটনাগুলো ঘটেছে, আমরা সেগুলো পর্যবেক্ষণ করছি। যেহেতু আমি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আছি, সেখান থেকে যা ব্যবস্থা নেওয়ার আমরা চেষ্টা করছি, যোগ করেন শিক্ষামন্ত্রী।

বিজ্ঞান শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মণ্ডল প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যা ঘটেছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক। বিজ্ঞান এবং ধর্মের মধ্যে আমি ব্যক্তিগতভাবে, একজন ধর্ম বিশ্বাসী এবং ধর্ম পালনকারী মুসলমান হিসেবে কোনো সংঘর্ষ দেখি না। তবে এটাও বলবো, একই সঙ্গে যে আমি ধর্ম বিষয়ে বা বিজ্ঞান বিষয়ে কোনোটিতেই আমি বিশেষজ্ঞ নই। কাজেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত রকমের কোনো মন্তব্য করা আমার পক্ষে সমীচীনও নয়, সম্ভবও নয়। কিন্তু যে ঘটনাটি ঘটেছে, সেটি আমরা খতিয়ে দেখছি।

দীপু মনি বলেন, প্রত্যেকের ধর্মচর্চা ও ধর্ম প্রচারের স্বাধীনতা রয়েছে, বঙ্গবন্ধু আমাদের সংবিধানে নিশ্চিত করে দিয়ে গেছেন। ঠিক একইভাবে আমাদের বিজ্ঞানকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ