রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন
add

বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদের ভাষা শহীদদের স্মরণে আলোর মিছিল

রিপোটারের নাম / ৮৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
nagoriknewsbd/photo

ভাষা শহীদদের স্মরণে আলোর মিছিল। দেশের উচ্চ আদালত হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টে বাংলা ভাষা প্রচলনের জোর দাবি।বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদ।

বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে গত ২০শে ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৭.০০ ঘটিকায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আন্দরকিল্লা চত্বরে ভাষা শহীদদের স্মরণে আলোর মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পরিষদের সভাপতি শিক্ষক অঞ্জন কান্তি চৌধুরী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাহিত্য পাঠচক্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শিক্ষক বাবুল কান্তি দাশ, পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সিঞ্চন ভৌমিকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টা অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্তী, মাষ্টার অজিত শীল, পরিষদের অর্থ সম্পাদক তপন ভট্টাচার্য্য, আবৃতি শিল্পী সুচয়ন সেন , মৃণাল দাশ, অধ্যাপক শিপুল দে, বিপ্লবী পরিবারের সদস্য প্রবীর দাশগুপ্ত, রুবেল পাল, সজল শিকদার।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছর পার হয়ে গেলেও আমরা ভাষা সৈনিকদের প্রতি যথাযথ মর্যাদা প্রদর্শন করতে পারি নাই, ভাষা শহীদরা যে আদর্শ নিয়ে ত্যাগ স্বীকার করে নিজের প্রাণ মাতৃভাষা রক্ষার জন্য বিসর্জন দিয়েছিলেন আমাদের সরকার তা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করতে পারেনি। এখনো ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম ফলক থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ আদালত হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টে বাংলা ভাষার সম্পূর্ণ প্রচলন সম্ভব হয়নি, যাহা জাতির জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক। যদিও দেশের দেশপ্রেমিক ১০ জন হাইকোটের বিচারক বাংলায় রায় ঘোষণা দিয়ে যাচ্ছেন নিয়মিত।

এর মধ্যে একজন বিচারপতি শেখ মোঃ জাকির হোসেন, সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মামলার রায় বাংলায় লিখে অনন্য নজির সৃষ্টি করেছেন। তিনি এই পর্যন্ত ১০ হাজারের অধিক মামলার রায় বাংলায় লিখে দিয়েছেন। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয় যে, দেশের উচ্চ আদালতে বাংলা ভাষা প্রচলন সম্ভব। কিন্তু আমাদের দেশের কিছু আইনজীবীর আন্তরিকতার অভাবে এখনো উচ্চ আদালতে রাষ্ট্রভাষা প্রয়োগ করা সম্ভব হয়নি। এরা নিয়মিত ভাবে দেশের সংবিধান, ১৯৮৭ সালের রাষ্ট্রভাষা আইন, ভাষা শহীদদের রক্ত, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধকে নিয়মিতভাবে অশ্রদ্ধা জানিয়ে আদালতে ইংরেজি ভাষায় কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এর থেকে মুক্তির জন্য দেশের সকল মানুষ এক হয়ে প্রতিবাদ করার জন্য আহবান জানান।

চট্টগ্রামের খ্যাতিমান গণসংগীত শিল্পী অচিন্ত্য দাশ, নারায়ণ দাশ, মোসলেম আলী জনি, দেলোয়ার হোসেন লিটন রণসংগীত পরিবেশন করেন।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ